আখাউড়ায়-ভারতের সীমান্তে ফের ঘটলো মিলন মেলা

0
34
মোঃ জসিম উদ্দিন, স্টাফ রিপোর্টারঃ ব্রাহ্মণবাড়িয়া আখাউড়ায় উপজেলার বাংলাদেশ – ভারতের সীমান্তে ফের ঘটলো মিলন মেলা৷ মানবতার অগ্রপথিক, নীরবে কাজ করে যাওয়া মানবিকতার অগ্রদূত, নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলার কৃতি সন্তান, ” মানব উদ্ধার স্বাস্থ্য সুরক্ষা কার্যক্রম”এর চেয়ারম্যান, কবি, সাংবাদিক খায়রুল আলমের বদান্যতায় এবং ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রাম, দুই দেশের সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা ও সাংবাদিক, আইনশৃংখলা বাহিনীর কঠোর ও নিরলস পরিশ্রমের ফলে এ মানুষগুলো দীর্ঘ দিন পরে দেশে এসে আপনজনদের উষ্ণ সান্নিধ্য পেলো৷
পাচার হয়ে যাওয়া যাদের দেশে ফিরিয়ে আনা হয়েছে তারা হলেন, ১. আল্পনা খাতুন জেলা- ময়মনসিংহ ২. জিয়াউর রহমান জেলা- বগুড়া ৩. মানিক মিয়া জেলা- জামালপুর ৪. রিনা বেগম জেলা- কেরানিগঞ্জ, ঢাকা ৫. হানিফা আক্তার জেলা- কিশোরগঞ্জ ও শাহজাহান ৷
এর আগেও কবি- সাংবাদিক খায়রুল আলমের প্রচেষ্টায় গত ১ নভেম্বর ২০১৯ সালে বিথি আক্তারসহ পাচার হয়ে যাওয়া আরও কয়েকজনকে আইনী ভাবে ও নিজে বিভিন্ন দপ্তরে দৌড়- ঝাঁপ দিয়ে দেশে এনে নিজ নিজ পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিয়েছিলেন ৷ তাঁর উদারতা ও মানবিকতার বিষয়টা দেশের প্রতিটি মানুষের মুখে-মুখে ৷
প্রত্যাবর্তনের সময় উপস্থিত ছিলেন, ত্রিপুরায় নিযুক্ত বাংলাদেশের ডেপুটি হাই কমিশনার, মো: জোবায়েদ হোসেন,বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার রোমানা আক্তার , সহকারি কমিশনার ( ভূমি)
সাইফুল ইসলাম, ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের কর্মকর্তা, বিজিবি- বিএসএফ ও পুলিশের সদস্যবৃন্দ৷ দুই দেশের গণমাধ্যম কর্মী, রাজনৈতিক কর্মী, সুশীল সমাজ ও উপস্থিত সাধারন জনগণ ৷
জানতে চাইলে, কবি খায়রুল আলম বলেন, আমি পাচার হয়ে যাওয়া এ অসহায় লোকজনদের দেশের মাটিতে এনে প্রিয়জনদের নিকট ফিরিয়ে দিতে পারছি এটাই আমার জীবনের সেরা মুহূর্ত৷ আমি এ কাজে সহযোগিতা করার জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি ৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here