‘খালেদার জন্য বিদেশ থেকে ডাক্তার আনতে পারবে বিএনপি’-আইনমন্ত্রী

0
25
স্টাফ রিপোর্টারঃ বর্ধিত সভায় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য বিএনপি যদি বিদেশও থেকে ডাক্তার আনতে চায় তাহলে আনতে পারবে ।

মন্ত্রী আরো জানান, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা মানবিকতার দৃষ্টান্ত হিসেবে আইনে যা করা সম্ভব বেগম খালেদা জিয়ার জন্য তা করেছেন। ভুলে গেলে চলবে না বাংলাদেশের আদালতে তিনি সাজাপ্রাপ্ত। বিএনপিকে এটাও মনে রাখতে হবে দেশের আইনে যা আছে, তার বাইরে গিয়ে সরকার কিছু করবে না।

আজ শনিবার (২০ নভেম্বর) সকালে আখাউড়া পৌরসভা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় মন্ত্রী কসবা ও আখাউড়ায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে কাউকে নৌকা বরাদ্দ দেওয়া হবে না বলে জানান।

এ সময় তিনি বলেন, মানুষের মনের কথা বুঝার চেষ্টা করে নৌকা প্রতীক বরাদ্দ না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে জনগণের ইচ্ছার প্রতিফলন ঘটবে।

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক ব্রাহ্মণবাড়িয়া- ৪ (কসবা-আখাউড়া) আসনের সংসদ সদস্য। বক্তব্যের সময় তিনি কসবাতেও নৌকা প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে না বলে জানান। পৌরসভা ভবনের তৃতীয় তলায় বিশেষ বর্ধিতসভা অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ও পৌর মেয়র তাকজিল খলিফা কাজলের সঞ্চালনায় এতে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক মো. জয়নাল আবেদীন। এতে নির্বাচনের প্রায় দেড় শতাধিক সম্ভাব্য প্রার্থী উপস্থিত ছিলেন।

খোঁজ নিয়ে ও স্থানীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আগামী ২৩ ডিসেম্বর আখাউড়া উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন। নির্দেশনা অনুযায়ি মঙ্গলবার আওয়ামী লীগের দলীয় ফরম সংগ্রহ করার শেষ দিন। তবে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া না দেওয়া বিষয়ে এখন পর্যন্ত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত না আসায় কেউ দলের ফরম সংগ্রহ করেননি।

নেতাকর্মীরা জানান, আখাউড়াতে একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন করার লক্ষ্যে দলের নীতি নির্ধারকরা শুরু থেকেই চাইছেন আওয়ামী লীগের প্রতীক ছাড়াই ভোট। এ ছাড়া নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দলের মধ্যে বিভেদ যেন না হয় কিংবা মনোনয়ন পরবর্তী বিদ্রোহী প্রার্থীর মতো কোনো বিষয় যেন না থাকে সে বিষয়টি এড়াতে দলের শীর্ষ মহলে আলোচনা হয়েছে। বিএনপি মাঠে না থাকায় প্রতীক বরাদ্দ না করার বিষয়টি আরো সহজ হয়ে যায়।

বর্ধিত সভায় মন্ত্রী বলেন, যারা বাংলাদেশকে ধ্বংস করতে চায় তারা চায় না সুষ্ঠু নির্বাচন হোক। এ বিষয়ে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে। আমার যতটুকু ক্ষমতা আছে সেটি প্রয়োগ করে শৃংখল নির্বাচনের ব্যবস্থা করব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here