চির নিদ্রায় শায়িত হলো গুলিবিদ্ধ সাহসী সাংবাদিক বোরহান উদ্দিন মুজাক্কির : দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবিতে আজ (২৩ ফেব্রুয়ারি) ঢাকাসহ দেশব্যাপী প্রতিবাদ সমাবেশের ডাক দিয়েছে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামসহ বাংলার সকল কলম সৈনিকরা

0
123

এফআইআর টিভি অনলাইন ডেক্সঃ নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের গুলিবিদ্ধ সাহসী সাংবাদিক বোরহান উদ্দিন মুজাক্কির হত্যার প্রতিবাদে দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবিতে আজ (২৩ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার) দেশব্যাপী প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। যেকোন সাংবাদিক সংগঠন, নেতৃবৃন্দ এ কর্মসূচীর আয়োজন এবং অংশগ্রহন করতে পারেন।

বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের (বিএমএসএফ) ডাকে জেলা/উপজেলায় সাংবাদিক সমাবেশের ঘোষণা দেন। এরই অংশ হিসেবে আজ (মঙ্গলবার) সকাল ১১টায় ঢাকা জেলা শাখার আয়োজনে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশের করবে বিএমএসএফ এর সকল সদস্যরা ।
দেশব্যাপী এ কমসূচী সফল করতে দেশের সকল সাংবাদিক সংগঠন নেতৃবৃন্দের প্রতি আহবান জানিয়েছেন বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি শহীদুল ইসলাম পাইলট ও সাধারণ সম্পাদক আহমেদ আবু জাফর।
উল্লেখ্য, গত ১৯ ফেব্রুয়ারী নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে ক্ষমতাসীন দলের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ভিডিওধারণকালে হামলাকারীরা তাকে ধরে নিয়ে প্রকাশ্যে গুলি করে। এসময় তার শরীরে ২৬টি স্পিন্টারবিদ্ধ হয়। তিনদিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে অবশেষে ২১ ফেব্রুয়ারী রাতে মৃত্যুর কাছে হেরে যান। সাহসী সাংবাদিক বোরহান উদ্দিন মুজাক্কির এর হত্যার দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবিতে আজ (২৩ ফেব্রুয়ারী) বিএমএসএফ’র পক্ষ থেকে দেশব্যাপী প্রতিবাদ সমাবেশ করবে ।

আমি হত ভাগা গুলিবিদ্ধ মুজাক্কির,
কবর থেকে বলছি !
সাংবাদিকতা মহান পেশা বলে আমি নেমে ছিলাম রাজপথে।
মিথ্যার মুখোশ খুলে দিয়ে সত্যকে ছিনিয়ে আনার আক্রোশে।
সুখ শান্তি বিস্বর্জন দিয়ে দেশটাকে লুটেপুটে খাওয়াদের খুজঁছিলাম যখন চারপাশে,
হঠাৎ নরপিশাচের গুলিতে, ঝাজড়া বুক নিয়ে পড়ে রইলাম মাঝপথে,
আমাকে বাচানঁ আমাকে বাচাঁন বলে চিৎকার ছিল সেই সাথে,
আমি বাকরুদ্ধ,আমি নিরব,আমি স্তব্ধ,বুক ভরা কষ্ট নিয়ে শায়িত আমি চিরনিদ্রায় !
কবে ভাঙবে ঘুম,কবে জাগবে বিবেক, আর কত রক্ত ঝড়লে দেবে সাড়া ?
গুম,হয়ে যাবো, খুন হয়ে যাবো, এভাবে আর কতকাল যাবো নির্যাতনে মারা ?
আমরা জাতির বিবেক,জীবনকে বিস্বজর্ন দিয়ে পেয়ে গেলাম শুধু আবেগ !
আমরা দেশ সেবায় আত্ম নিয়োগ করি।
জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাষ্ট্রের জন্য কাজ করি।
সমাজের নানা অসংগতিকে আমরাই সবার চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেই।
তবুও রাষ্ট্র আমাদের স্বীকৃতি দেয়নি। নিরাপত্তা দেয়নি। স্বাধীনতা দেয়নি।
আমি হত ভাগা গুলিবিদ্ধ মুজাক্কির,কবর থেকে বলছি !
আমি চিরনিদ্রায় শায়িত ! তোমাদের কাছে আমার অনুরোধ রইলো !
তোমরা আমার ভাই, তোমরা আমার বোন আমি রাজপথে প্রান দিয়ে গেলাম !
অনেক সাংবাদিক জীবন দিয়েছেন।
আমি নিজের হত্যার বিচার চাইনা।
হাজার সাংবাদিকের জীবন দানের বিনিময়ে-
আমি গণমাধ্যমের স্বাধীনতা চাই।
আমি সাংবাদিক সমাজের নিরাপত্তা চাই।
আমি জাতির বিবেকদের ন্যায় সংগত অধিকার চাই।
সাংবাদিক ভাই,বোনদের কাছে আমার দাবী,
যতক্ষণ পর্যন্ত গণমাধ্যমের স্বাধীনতা,সাংবাদিকদের ন্যায়সঙ্গত অধিকার এবং সুরক্ষা নিশ্চিত করা হবেনা ততক্ষণ পর্যন্ত সংগ্রাম চলবে।
মনে রাখবা সাংবাদিক ভাই-বোনেরা,অধিকার কেউ কেউ দেয়না,অধিকার ছিনিয়ে আনতে হয়।
১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন থেকে ১৯৯০ সালের গণআন্দোলন তারই প্রমান।
আমি চলে গেলাম, তোমাদের কাছে আমার অসমাপ্ত কাজের দায়িত্ব দিয়ে গেলাম !
নির্যাতিত সকল সাংবাদিকের আত্মাকে শান্তি দিও ভাই
আমি হত ভাগা গুলিবিদ্ধ মুজাক্কির,কবর থেকে বলছি !

লেখক: আবুল হাসান বেল্লাল
প্রশিক্ষণ ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক
বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম
কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি,ঢাকা।

এছাড়া সাহসী সাংবাদিক বোরহান উদ্দিন মুজাক্কির এর হত্যার দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবিতে আজ দেশব্যাপী প্রতিবাদ সমাবেশ করবে, গাজীপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে নোয়াখালীতে সাংবাদিক হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম বিএমএসএফ গাজীপুর জেলা শাখার এই কর্মসূচি। দল মত ও ক্লাব সংগঠন নির্বিশেষে সকলের অংশগ্রহণ করার আহব্বান ।
নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার স্থানীয় সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কিরকে গুলি করে হত্যা করার তিনদিন পরও দেশের বড় বড় সাংবাদিক সংগঠন ও মিডিয়া হাউজগুলো নীরব কেন?
তবে বিএমএসএফ এর ডাকে আজ (২৩ ফেব্রুয়ারি) সারাদেশে অনুষ্ঠেয় সাংবাদিকদের প্রতিবাদ সভায় আসুন, হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে আমরা মফস্বলের সাংবাদিকেরা সমস্বরে প্রতিবাদ করি।
জাগো বাংলার বিবেক জাগো’ সময় এখনি তবে জাগো…
জাগো বাংলার বিবেক জাগো। আমাদের জীবনের তাগিদে আজ জাগতেই হবে।
কাজী নজরুলের অগ্নিবীণা কিংবা বিদ্রোহী কবিতার মতো। আমাদের জাগতেই হবে জীবনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতেই। ওরা আমাদের পিপীলিকা ভেবে হস্তির পদতলে পিষ্ট করছে প্রতিনিয়ত। রাজার গোলাম থেকে শুরু করে রাজ্যের মাফিয়ারা, আমাদের উপর হামলা করছে অতি তুচ্ছ ভেবে, বার বার আঘাত করছে আমাদের জীবনের উপর। তাতে কেউ হারাচ্ছি প্রাণ কেউবা বরণ করছি চির পঙ্গুত্ব।
আমাদের অপরাধটাই বা কি?
কোন অদৃশ্য কারণে আমরা হামলার শিকার হচ্ছি বার বার? আমরা জাতির বিবেক হিসাবে যারা দাবী করি, আমাদের অনৈক্যের কারণেই ওরা আমাদের উপর হামলা করার সাহস পায়।
তাই আজ সকল অনৈক্যের জড়তা কেটে
একতার দৃঢ়বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে আমাদের জাগতেই হবে।
আমরা কলম সৈনিকেরা সত্য লিখছি বলেই কি আমাদের অপরাধ? আমাদের রাষ্ট্র আর সমাজের প্রতিটি রন্ধ্রে রন্ধ্রে দুর্নীতি নামের ক্যানসার বাসা বেঁধেছে।
সেই ক্যানসারের প্রতিষেধক হিসেবে
কলম সৈনিক হয়ে দুকলম লেখাটাই কি অপরাধ?
আমরা দুর্নীতিবাজ, সন্ত্রাসী, মাদক কারবারি, চাঁদাবাজ, ধান্ধাবাজদের হাতে নিগৃহীত কিংবা নির্মম নির্যাতনের শিকার হতেই থাকবো?
আমরা কি ক্ষমতা লোভীদের ক্ষমতা দখলের যুদ্ধে, উভয় পক্ষের বন্দুকের নিশানা হয়ে,
কোম্পানী গঞ্জের মুজাক্কিরের মতো গুলিবিদ্ধ হয়ে মরতে হবে ?
শহীদ সাগর-রুনি আর বোরহান উদ্দিন মুজাক্কিরের,রক্তের প্রতিশোধ নিতে আমাদের জাগতেই হবে। হে বাংলার বিবেক,
আমাদের সামনেই মহেশখালীর ছালামত উল্লাহ রাজাকারের বাচ্চার হাতে রক্তাক্ত হয়েছে।
কক্সবাজারের ফরিদুল মোস্তফার উপর পুলিশের পৈশাচিক নির্যাতন। গাজীপুরে সন্ত্রাসীদের হামলায় ছিদ্দিক চিরপঙ্গুত্বের পথে।
আখাউড়ার, আবির,রুবেল, ইসমাইল হল হামলার শিকার। গতকাল হামলার শিকার হয়েছেন পটুয়াখালী বিএমএসএফ সভাপতি হারুন অর রশীদ। আমার কথা না হয় বাদই দিলা। তবে মামলা-হামলার শিকার হয়েছি অগনিতবার। তবুও শক্ত পায়ে হেটে কলম আকড়ে আজো বেঁচে আছি।
সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে সাংবাদিক কামালকে চোরের মতো গাছের সাথে বেঁধে নির্মম প্রহার করা হল।
ভালুকার বিল্লাল হোসেন, নারী সাংবাদিক লিমার উপর হল বর্বর হামলা।
উখিয়ার হাকিমের উপর পর পর দুই বার ইয়াবা ডনের পৈশাচিক নির্যাতন চালানো হল।
উখিয়ার শরীফ আজাদের উপর হামলা করে রক্তাক্ত করা হয়েছে।
দেশব্যাপী মিথ্যা মামলার আসামী করা হয়েছে অসংখ্য সাংবাদিকদের।এত কিছুর পরও কি নিরবতা পালন করেই যাবেন হে জাতির বিবেক?
আজ আমাদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে, পেছনে যাবার আর কোন রাস্তা নেই।
উল্কা গতিতে এগিয়ে যেতে হবে সম্মুখ পানে।
হে সারা দেশের জাতির বিবেক,
আজ মান অভিমান দুরে ফেলে
জেগে উঠ দলে দলে। তাইতো…. বিএমএসএফ দিচ্ছে ডাক
খুনীরা সব নিপাত যাক।
খুন হয়েছে আমার ভাই
খুনী তোদের রক্ষা নাই।
মুজাক্কিরের রক্ত
বৃথা যেতে পারেনা।
মুজাক্কিরের খুনীদের গ্রেফতার কর করতে হবে।
জাতির বিবেক জেগে উঠ, ১৪ দফা দাবী তুল।
বিএমএসএফ এর ১৪ দফা মানতে হবে, মেনে নাও।
সব ভেদাবেদ গিয়ে ভুলে, এসো বিএমএসএফের পতাকা তলে।
লেখক: সমুদ্র সৈকত কক্সবাজার থেকে বিএমএসএফ জেলা কমিটির আহবায়ক মো: শহিদুল্লাহ।।

সাংবাদিক নির্যাতন বিরোধী আন্দোলনে যোগ দিয়ে পেশার মর্যাদা, দাবি ও অধিকার রক্ষায় নিজেকে নিয়োজিত করি: সাংবাদিক বোরহান উদ্দিন মুজাক্কির হত্যার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে ২৩ ফেব্রুয়ারি ঢাকাসহ দেশব্যাপী প্রতিবাদ সমাবেশের ডাক দিয়েছে বিএমএসএফ।
প্রতিবাদ সমাবেশ সফলের লক্ষ্যে গাজীপুর জেলা শাখা আজ ( ২৩ শে ফেব্রুয়ারি ) সকাল ১১ টায় গাজীপুর প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশ কর্মসূচি পালন করবে ।
গাজীপুর জেলার সকল সাংবাদিকদের অংশগ্রহণ করার অনুরোধ রইলো।
শারমীন সুলতানা মিতু,
কোষাধ্যক্ষ, কেন্দ্রীয় কমিটি
বিএমএসএফ ।

**** নোয়াখালীর কোম্পানিগঞ্জে গুলিবিদ্ধ তরুন সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির হত্যার দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবিতে আগামি ২৩ ফেব্রুয়ারি ঢাকাসহ দেশব্যাপী প্রতিবাদ সমাবেশের ঘোষণা করা হয়েছে।
বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি শহীদুল ইসলাম পাইলট ও সাধারণ সম্পাদক আহমেদ আবু জাফর প্রতিবাদ সমাবেশ সফল করতে সকল সাংবাদিক এবং সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে আহবান করেছেন।
কোম্পানিগঞ্জে পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে গুলিবিদ্ধ হন সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির। দু’দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে শনিবার রাত পৌনে এগারটার দিকে পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে চিরতরে বিদায় নিয়ে চলে গেলেন না ফেরার দেশে।
নেতৃবৃন্দ বলেন, রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারনে আমরা একজন সহকর্মীকে হারালাম! এভাবে আর কত সাংবাদিকের প্রান যাবে ? প্রতিহিংসার রাজনীতি দূর হবে কবে? রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা আর আমলাতান্ত্রিক জটিলতা নিরসন হবে কবে? সাংবাদিক নিযর্যাতন কবে বন্ধ হবে? সাংবাদিক সুরক্ষায় আইন প্রণয়নে আর কত দেরী?
এসকল প্রশ্নের জবাব জানতে আজ ২৩ ফেব্রুয়ারি দেশব্যাপী জেলা-উপজেলায় প্রতিবাদ সমাবেশ সফল করুন। যেকোন সাংবাদিক সংগঠন এই দাবিতে প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করতে পারবেন।
উল্লেখ্য, ১৯ ফেব্রুয়ারি বিকেলে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চাপরাশিরহাট বাজারে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মুখোমুখি সংঘর্ষে সংবাদ সংগ্রহ করা অবস্থায় বার্তা বাজার অনলাইনের সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির গুলিবিদ্ধ হন। পরবর্তীতে অবস্থার অবনতি হলে তাকে দ্রুত ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে আসা হয়।মুজাক্কির ঢাকা মেডিকেলের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তার অকাল মৃত্যুতে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম গভীর ভাবে শোকাহত।
প্রসঙ্গত: বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম সাংবাদিক নির্যাতনমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে ২০১৩ সাল থেকে ১৪ দফা দাবি আদায়ে কাজ করছে।

****জাগো বাংলার বিবেক জাগো’ সময় এখনি তবে জাগো…….. এই স্লোগাটি সামনে রেখে কাজ করে যাচ্ছে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) দিচ্ছে ডাক খুনীরা সব নিপাত যাক।
খুন হয়েছে আমার ভাই
খুনী তোদের রক্ষা নাই।
মুজাক্কিরের রক্ত
বৃথা যেতে পারেনা।
মুজাক্কিরের খুনীদের গ্রেফতার কর করতে হবে।
জাতির বিবেক জেগে উঠ, ১৪ দফা দাবী তুল।
বিএমএসএফ এর ১৪ দফা মানতে হবে, মেনে নাও।
সব ভেদাবেদ গিয়ে ভুলে, এসো বিএমএসএফের পতাকা তলে……………………………………বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) এর মাধবপুর উপজেলা শাখা কমিটির (সভাপ্রতি সাংবাদিক এম এ কাদের এর উদ্যোগে) পক্ষ হতে, নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের গুলিবিদ্ধ সাহসী সাংবাদিক বোরহান উদ্দিন মুজাক্কির হত্যার প্রতিবাদে দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবিতে প্রতিবাদ সভা ও মানব বন্ধন করার কর্মসূচি হাতে নিয়েছে, খুব শীঘ্রই মাধবপুরে সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির হত্যার দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবিতে প্রতিবাদ সভা ও মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হইবে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here