জনমনে ক্ষোভ: ছাতিয়াইন টু ফান্দাউক সড়কের প্রায় ৭০ শতাংশ রাস্তা চলাচলের অনুপযোগী।।দেখার কেউ নেই !

0
157

মোঃ মাসুদ লস্কর, মাধবপুর থেকেঃ ঢাকা সিলেট মহাসড়ক এর সংযোগ স্হল রতনপুর – ফান্দাউক- ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিশ্ব রোড। এ রাস্তা দিয়ে প্রতিনিয়ত হাজার হাজার হাজার সিএনজি, ট্রাক ও বাস চলাচল করে । কিন্তু চলাচলের রাস্তার এমন বেহাল অবস্থা যা বলা বাহুল্য । নিম্নগতি নিয়ে ও চলতে পারে না গাড়ি।

হবিগঞ্জ জেলা মাধবপুর উপজেলার ও নাসির নগর উপজেলার জনবহুল রাস্তা হওয়ায় শীত মৌসুমে ডাকাতের উৎপাত বেড়ে যায়। সন্ধ্যার পর যান চলাচল বিঘ্ন ঘটায় আশংঙ্কা ও উৎকন্ঠা নিয়ে গন্তব্যের উদ্দেশে রওনা হয় এলাকাবাসী।পথিমধ্যে ডাকাতদের আক্রমণের স্বীকার হয় প্রতিনিয়ত।  এক সময় ডাকাতের দল রাস্তায় গাছ ফেলে ডাকাতি করলেও রাস্তার বেহাল অবস্থা হওয়ায় এখন নির্ভিগ্নে তাদের ডাকাতি সম্পন্ন করে। ডাকাতের হাত থেকে রেহাই পায়নি এই রাস্তায় চলাচলের যাত্রীরা । বেশ কয়েকবার ডাকাতের গুলিতে ও ছুরিকাঘাতে আহত হয় অনেক পথচারী । সন্ধ্যার পর ডাকাত ডাকাত চিৎকার এলাকাবাসীর চেনা সুর। অথচ এ রাস্তা সংস্কারে নেই কারো মাথাব্যথা কিংবা স্হায়ী উদ্যোগ।

বিগত সংসদ নির্বাচন এর সময় ব্যারিস্টার সাইদুল হক সুমন সাহেব ব্যাক্তিগত উদ্যোগে কিছু ইট বালি দিয়ে রাস্তা মেরামতের দায়িত্ব নিয়ে উনার ব্যাক্তিগত ভেরিফাইড ফেসবুক আইডি থেকে লাইভে আসলে স্হানীয় সংসদ সদস্য( হবিগঞ্জ -৪) বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী এড.মাহবুব আলী এমপি’র নজরে আসলে তিনি রাস্তাটি সংস্কারের নির্দেশ দেন।

নামেমাত্র সংস্কার করে (ছোট ছোট গর্ত ভরাট করা হয়)! কিন্তু স্হায়ী সমাধান হয়নি। বর্তমানে যেই লাউ সেই কদু। আসছে বর্ষা মৌসুম। গতকাল ১৮ জানুয়ারী সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় এল,জি,ই,ডি’র কিছু মহিলা শ্রমিক খাল থেকে মাটি তুলে প্রিজঢালা রাস্তার গর্তের মেরামতের কাজ করছে। এতে করে সাময়িক সমস্যার সমাধান হলেও কিছুদিন পরে গর্তগুলো বিরাট আকার ধারণ করবে বলে ধারণা করেন সমাজের সচেতন নাগরিক মহল । কাজেই রাস্তাটির স্হায়ী ভাবে মেরামত করে পার্শ্ববর্তী ছাতিয়াইন, শিমুলঘর, আতুকুড়া,ফান্ডাউক,দাশপাড়া,এক্তিয়ারপুর,শ্রীমপুরসহ সকল গ্রামের জনসাধারনের দুর্দশা থেকে রেহাই পাওয়ার জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে এলাকাবাসীর জোর দাবী।

মধ্যে গ্রাম গঞ্জের সাধারন মানুষের চলাচলের রাস্তাগুলো যান চলাচলের একেবারেই অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এসকল রাস্তাগুলো সংস্কারের অভাবে এতোটাই অনুপযোগী হয়ে উঠেছে যা কিনা অতীতের যেকোন সময়ের তুলনায় জরাজীর্ণ। অনুসন্ধানে দেখা গেছে, উপজেলার মধ্যে সে সকল রাস্তা রয়েছে তার মধ্যে এই রাস্তাটি প্রায় ৭০ শতাংশ রাস্তাই চলাচলের অনুপযোগী। প্রতিনিয়নই ঘটছে এসকল রাস্তায় ছোট বড় দূর্ঘটনা। ফলে সাধারন মানুষের মনে ব্যাপক ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। জনদূর্ভোগের কারনে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটের রাজনীতিতে ব্যাপক প্রভাব ফেলবে বলে অনেকেই মনে করছেন।

তথ্য অনুসন্ধানে দেখা গেছে, একটি দেশের অর্থনৈতিকসহ সামগ্রিক অবকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি অপরিহার্য ও গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। যেখানে যোগাযোগ ব্যবস্থাই ভঙ্গুর, সেখানে উন্নয়নের রুপরেখা তৈরি করে কোন লাভ হবে বলে মনে হয় না।

উপজেলার অভ্যন্তরের গ্রাম গঞ্জের রাস্তা ঘাটের অবস্থা দেখলে মনে হয়না এ এলাকার মানুষের কোন অভিভাবক আছে। গ্রামের সাধারন মানুষ যখন কষ্ট করে এ সকল ভাঙ্গা চোরা রাস্তা দিয়ে চলাফেরা করে প্রতিনিয়তই তাদের ভর্ত্বসনা করতে শোনা যায়।

গুরুত্বপুর্ণ এই সড়কটি প্রধান সড়ক রতনপুর  বাসষ্ট্যান্ড থেকে ছাতিয়াইন বাজার এলাকার রাস্তাটির দূর্দশা সব চাইতে বেশি। এর পরেই রয়েছে শিমূলঘর গ্রাম, পিয়াইম সাকুচাইল গ্রাম, ছাতিয়াইন বাজার থেকে রামেশ্বর খান্দুরা গ্রাম, ফান্দাউক ও নাসির নগর উপজেলার সকল সংযোগ সড়ক মাধবপুর উপজেলার সাথে। এসব রাস্তায় ১ কি:মি: যাওয়ার ভয়ে মানুষ ৫কি:মি: ঘুরে যেতেও দ্বিধাবোধ করছেন না। এছাড়া গ্রাম গঞ্জের কম চওড়ার রাস্তাগুলোর অবস্থাও বেশ রয়েছে । ছোট বড় গর্ত আর খানা খন্দে পরিপূর্ণ উপজেলার মধ্যে গ্রাম গঞ্জে চলাচলকারী রাস্তা গুলো। সেখানে এসকল মানুষের চলাচলের প্রধান বাহন হল নছিমন, অটোবাইক, অটোভ্যান-রিক্সা, অটোরিকশা। প্রায় প্রতিদিনই উপজেলার কোন এক জায়গার দূর্ঘটনার ঘটনা ঘটেই চলেছে।

বছরের পর বছর সংস্কার কাজ না হওয়ায় এই সব রাস্তা প্রায় সর্বত্র রাস্তা ঘাট ভাঙ্গাচোড়া অবস্থায় রয়েছে দীর্ঘদিন যাবৎ। রাস্তায় ও অসংখ্য ছোট বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।দলমত নির্বিশেষে বিশিষ্টজনের মতামত হল,এই সামান্য রাস্তার জন্য সরকারের সফলতা অনেকটা ম্লান হতে চলেছে।

এলাকাবাসী ও পথচারীদের প্রধাণ ক্ষোভ হল, কোন গর্ভর্তী মা’কে চিকিৎসা করার জন্য নিয়ে যেতে হলে যে কোন যানবাহনে গন্তব্যে পৌঁছানোর আগেই আরো বেশি অসুস্থ হয়ে পড়ে। এমন অবস্থায় মানুষ কিভাবে চলাচল করবে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এবং  সড়ক ও সেতু মন্ত্রীসহ সকল উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সু-দৃষ্টি কামনা করছেন অত্র এলাকার সচেতন নাগরিক ও পথচারীগন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here