ডিপার্টমেন্টে আলো ছড়ানােই যার কাজ

0
41

এফআইআর টিভি অনলাইন ডেক্সঃ আমিনুল ইসলাম আহাদ। যেমন সুন্দর মানুষ, তেমনই সুন্দর তার মন। ডিপার্টমেন্টে অালো ছড়ানোই যার কাজ, তিনি হলেন হবিগঞ্জ জেলার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ স্থান শায়েস্তা গঞ্জ হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ( ওসি) মোহাম্মদ মাইনুল ইসলাম। শায়েস্তাগঞ্জে যোগদানের পর থেকেই পাল্টে যাচ্ছে ওই জেলার গুরুগুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন স্থানের চিত্র।

জানা যায়, শায়েস্তাগঞ্জের নতুন ব্রিজ এলাকার সৌন্দর্যবর্ধনে নানা ভুমিকা রেখে পুরো জেলায় আলোচনায় আসেন ওসি মোহাম্মদ মাইনুল ইসলাম। শায়েস্তাগঞ্জের পূর্বে তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইল উপজেলার খাটিহাতা হাইওয়ে থানায় কর্মরত থাকা অবস্থায় বিশ্বরোডকে শতভাগ চাঁদাবাজ মুক্ত ও অবৈধ বিলবোর্ড অপসারণ করে ব্যাপক প্রশংসাঅর্জন করেন।

এক সময় ওসি মোহাম্মদ মাইনুল ইসলাম ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর থানায় সেকেন্ড অফিসার হিসেবে কর্মরত থাকা কালীন সময়ে ওই থানার এস অাই মোঃ রফিকুল ইসলামের চুরি যাওয়া পিস্তল উদ্ধার করে ডিপার্মেন্টে ব্যাপক খ্যাতি অর্জন করে ও পুরস্কারে ভুষিত হন।

ওসি মাইনুলের বর্তমান কর্মস্থল শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানায়। ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের শায়েস্তাগঞ্জ নতুন ব্রিজ গোল চত্বর পয়েন্ট এলাকার ঝুঁকিপূর্ণ গর্তগুলো ইট দিয়ে ভরাট করে দেন ওসি মোহাম্মদ মাইনুল ইসলাম। ফলে সওজের পক্ষ থেকে তাকে জানানো হয় বরাদ্ধ সাপেক্ষে সংস্কার করানো হবে।

বরাদ্ধ অাসতে দেরী দেখে অবশেষে ওসি মোহাম্মদ মাইনুল ইসলাম নিজে উদ্যোগ নিয়ে নিজ অর্থে ব্রিকস ফিল্ড থেকে ইটের গুঁড়া ক্রয় করে গর্তগুলো ভরাট করান। এ উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন তৃণমূল লোকেরা।

ওসি মোহাম্মদ মাইনুল ইসলাম বলেন, সড়কে বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হওয়ায় গাড়িগুলো ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে দেখে নিজে উদ্যোগ নিয়ে ইট এনে গর্ত ভরাট করে দিয়েছি।এতে অামার অনেক ভালো লেগেছে। আমার দায়িত্ব নিরাপত্তা দেওয়া। গর্ত ভরাটের দায়িত্ব অামার না থাকলেও বসে থাকতে পারিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here