ঢাকার পানি সম্পদ পরিকল্পনা সংস্থার ওয়ারপো নিয়োগে নৈতিক অবক্ষয়

0
93

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের অধীনে ঢাকার প্রধান কার্য্যালয় পানি সম্পদ পরিকল্পনা সংস্থা (ওয়ারপো)-warpo-(Water resources Planning organaization)-নিয়োগে দুর্নিতীর তথ্য মিলেছে।

যানা- যায়, ১৯/০২/২০২২ ইং তারিখে পানি সম্পদ পরিকল্পনা সংস্থা (ওয়ারপো)-তে একটি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়। যাহার স্মারক নম্বর‌‌ ৪২.০২.০০০০.০০৩. ১৮.০১০.১৯ (৩য় খন্ড)-৬৩৯, উল্লেখিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির সদস্য সচিব (অঃদা)-ওয়ারপো-পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের অধিনস্থ-পানি সম্পদ পরিকল্পনা সংস্থা(ওয়ারপো)-তে এবিএম গোলাম ফারুক সাক্ষরিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয় পানি সম্পদ সংস্থা (ওয়ারপো)-তে রাজস্ব খাতে পদ সমূহে অস্থায়ী ভিত্তিতে ঢাকা বিভাগ ব্যাতীত-৭(সাত) টি বিভাগীয় জেলা কার্যালয়ের জন্য ১ নং হতে ৪ নং ক্রমিক নম্বর পর্যন্ত বিভিন্ন পদে মোট-৩৫ (পঁয়ত্রিশ) জন জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, যে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে-১(এক)নং ক্রমিক নম্বরের নবসৃষ্টপদবী উপ-সহকারী প্রকৌশলী / কার্টোগ্রাফার ও ক্রমিক নং-২(দুই)-এর-হিসাব রক্ষক পদবীতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রদান করা ছিলো। অনুসন্ধানে পাওয়া-যায় ক্রমিক নং- ১ ও ২ পদবী সহ সকল পদেই নিয়োগ দিয়েছেন উল্লেখিত নিয়োগ কমিটির সদস্য সচিব এবিএম গোলাম ফারুক (অঃ দাঃ)- পরিকল্পনা সাংস্থা-(Warpo)-র প্রধান কার্যালয়ের অধীনে উপ-সচিব পদ-মর্যাদায় কর্মরত আছেন।

পানি সম্পদ পরিকল্পনা সংস্থা(ওয়ারপো)’র প্রধান কার্যালয়ে বিভিন্ন মাধ্যমে ও সরোজমিন অনুসন্ধানে পাওয়া যায়- উল্লেখিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে যাহারা নিয়োগ পেয়েছেন। নিয়োগ প্রাপ্তদের মধ্যে সিংহভাগ ব্যক্তি-ই
অসাধু উপায়ে লিখিত পরীক্ষা ও নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে প্রকাশকৃত চাহিদা অনুযায়ী একাডেমিক সনদপত্র সহ সব কিছুই জ্বালিয়াতি ও অনিয়মের মাধ্যমেই উপস্থাপন করে নিয়োগ পেয়েছেন, যাহা একদম বে-আইনী দুর্নীতি হয়েছে,যা কিছু তথ্য-উপাত্তর ভিত্তিতে প্রমান পাওয়া গেছে। উল্লেখ্য যে- অসাধু উপায়ে নিয়োগ প্রাপ্তরা স্ব স্ব কর্মস্থলে যোগদানের পরো তাদের চাকুরী স্থায়ী হয় নাই-কারণ, উল্লেখিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে অসাধু উপায়ে যেসব ব্যক্তিরা নিয়োগ পেয়ে বিভিন্ন বিভাগীয় অফিসগুলোতে কর্মরত আছেন – আর এ অসাধু উপায়ে নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে- সেই নিয়োগ কমিটির সদস্য সচিব এবিএম গোলাম ফারুক ও ডঃ মোঃ আমিনুল হক নিয়োগ কমিটির প্রাণবন্ত সদস্য,এই দুইজন কর্মকর্তার সক্রিয়তার কারণেই জ্বালিয়াতির মাধ্যমে নিয়োগ হয়েছে সেটা নিয়ে পানি সম্পদ পরিকল্পনা সংস্থা (warpo) কার্যালয় সহ বিভিন্ন শাখাতে ব্যাপক কানাঘোষা এখনো চলমান এবং এমন অনিয়ম করে নিয়োগ প্রাপ্ত হয়েছে তাই এখন পর্যন্ত স্থায়ী করন নিয়ে উর্ধতন কর্মকর্তাদের মধ্যে মত-বিরোধ চলমান। এই আসাধু উপায়ে তৎকালীন নিয়োগ কমিটি’র সদস্য সচিব- বর্তমান উপ-সচিব পদ মর্যাদায় – এবিএম গোলাম ফারুকের কাছে অসাধু উপায়ে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে প্রসঙ্গে তাঁর মোবাইল ফোনে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন -এ নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ে আপনি অফিসে এসে কথা বলেন,নতুবা আপনার মতো আপনি যা ইচ্ছে তাই করেন।তবে বর্তমান দায়িত্বরত পানি সম্পদ পরিকল্পনা সংস্থার মহাপরিচালক মো:রেজাউল মকছুদ জাহেদী কে উল্লেখিত বিষয়ে জানানোর জন্য তার মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন কল রিসিভ করেনি বিধায় তার কোন মন্তব্য তুলে ধরা সম্ভব হয়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here