বিদায় নিলেন মাধবপুরের ইউএনও ফাতেমা তুজ জোহুরা প্রকাশ করলেন নিজের মনের কথা

0
44

মোঃ জসিম উদ্দিন,স্টাফ রিপোর্টারঃ সত্যি খুব কষ্ট লাগছে আমাদেরকে ছেড়ে এভাবে চলে গেলেন প্রিয় ম্যাডাম,আপনার প্রতি শ্রদ্ধা ও শুভ কামনা করি সবসময় ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন সব সময় এমনি কামনা করেন মাধবপুরবাসী !

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাবা ফাতেমা তুজ জোহুরা ০১ জুন ২০২১তারিখে মাধবপুর উপজেলার কর্মস্থল থেকে বিদায় নিলেন এবং বিদায় বেলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাবা ফাতেমা তুজ জোহুরা এর নিজ ব্যক্তব্যে যা প্রকাশ করলেন তিনি মাধবপুর উপজেলা বাসীর নিকট বলেন আসসালামু আলাইকুম আমি
উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে মাধবপুরে আজ ছিল আমার শেষ কর্মদিবস।
মোটঃ ০৪ মাস ১৬ দিনের এ স্বল্প কর্মকালীন সময়ের পুরো সময়টুকু মাধবপুরকে আমার নিজের বাড়ির মত ভালোবেসেছি।
উপজেলার ০১নং ধর্মঘর ইউনিয়ন থেকে ১১নং বাঘাসুরা ইউনিয়নের প্রত্যন্ত এলাকায় সরকারি কাজ পরিদর্শনে হোক কিংবা সাধারণ মানুষের ডাকে সাড়া দিয়ে হোক আমি ছুটে গিয়েছি।
মাধবপুরের খেটে খাওয়া অসহায় মানুষ কিংবা চা বাগানের শ্রমিকের মুখের হাসির মাঝে আমি কর্মের অণুপ্রেরনা খুঁজে নিয়েছি।
মাধবপুরের আনাচে-কানাচে ছড়িয়ে থাকা প্রতিভাবান শিল্পী কিংবা চা শ্রমিকের ঘরে জন্ম নেয়া ক্ষুদে ফুটবল তারকার মাঝে খ্ব্বুজে নিয়েছি আমার সমৃদ্ধি।
আমি ইউএনও হিসেবে মাধবপুর ছিল আমার প্রথম কর্মস্থল। তাই কাজের ধরণ বুঝে নিয়ে এ করোনা মহামারী পরিস্থিতিতে মাধবপুরের মানুষকে কতটুকু সরকারি সেবা দিতে পেরেছি তা মাধবপুরবাসী মূল্যায়ন করবেন। তবে এতটুকু বলতে পারি আমি আমার সাধ্যমত চেষ্টা করেছি, এ চেষ্টায় আন্তরিকতারর কোন ত্রুটি ছিল না।
এ সময়ের পুরোটুকু আমি মাধবপুরবাসীর পূর্ণ সমর্থন পেয়েছি।
মাননীয় বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী স্যার,জেলা প্রশাসক স্যার, উপজেলা প্রশাসনের সকল কর্মকর্তা, রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনের সকল মানুষ, মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক সহ মাধবপুরের আপামর জনগোষ্ঠীর আমার কাজের প্রতি যে অকুন্ঠ সমর্থন আর ভালোবাসা ছিল তা আমাকে সকল প্রতিবন্ধকতা কাটিয়ে সামনে এগিয়ে যাওয়ার অনুপ্রেরণা যুগিয়েছে।কার্যক্ষেত্রে কিংবা চলার পথে যদি কোন ভুল-ত্রুটি করে থাকি তবে মাধবপুরবাসীর উদার মনমানসিকতার গুণে আমাকে ক্ষমা করে দেবেন।
এ স্বল্প কর্মকালীন সময়ে আমার প্রতি মাধবপুরবাসীর যে অকুন্ঠ ভালোবাসা আর সমর্থন আমি দেখেছি তার জন্য আমি আজীবন কৃতজ্ঞ থাকবো। মাধবপুরবাসীর এ ভালোবাসার ঋণ শোধ করা আমার পক্ষে সম্ভব নয়। নতুন কর্মস্থলে আপনাদের থেকে পাওয়া অণুপ্রেরনা নিয়ে সামনে এগিয়ে যেতে চাই।
ভালো থাকুক আমার প্রিয় মাধবপুর, ভালো থাকুক মাধবপুরের প্রিয় মুখগুলো। মাধবপুরের সুখ স্মৃতিগুলো আমার হৃদয়ের মনিকোঠায় আজীবন বেঁচে থাকবে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here