মহামান্য রাষ্ট্রপতি কে নিয়ে কিছু কথা-শেখ তৌফিকুল ইসলাম

0
44
মহামান্য রাষ্ট্রপতির প্রাণের শহর কিশোরগঞ্জ। এই শহরে অসহনীয় যানজটের প্রসঙ্গটি আজ উঠে আসে মহামান্যের বক্তব্যে। নিরসনের উপায় নিয়ে উপস্থিত বিশিষ্ট নাগরিকদের সাথে মতবিনিময়সহ সমন্বিত উদ্যোগের দিকনির্দেশনাও দেন তিনি । মহামান্যের বক্তব্য কিশোরগঞ্জ ক্যাবল নেটওয়ার্কে (KCN) সরাসরি সম্প্রচারিত হয়।
আমরা কিছু সুসংবাদও পেলাম শিল্পকলা একাডেমির এই আয়োজনে। মহামান্যের ইচ্ছে, এই শহর সম্প্রসারিত হউক। তাই বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয়টি স্থাপিত হবে শহরের পূর্বাংশে মরিচখালি রোডে ১০৩ একর জায়গা জুড়ে । উনার ঐকান্তিক উদ্যোগ প্রচেষ্টার ফসল ” বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয়ের ” ভিসি উপস্থিত থেকে জানালেন এই বৎসরই চালু হবে একাডেমিক কার্যক্রম, চারটি বিভাগে ছাত্রছাত্রী ভর্তির মাধ্যমে । পর্যায়ক্রমে শিক্ষার্থীর সংখ্যা হবে পনের হাজার।
শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অবস্থাও মহামান্য জ্ঞাত। তিনি বিদ্যমান সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার নিশ্চিত করতে সাময়িক ব্যবস্থা হিসাবে হিসাবে একজন সেনা কর্মকর্তাকে হাসপাতাল পরিচালনার দায়িত্বে আনার বিষয়েও সুধীবৃন্দের মতামতে আলোকপাত করেন।
এই সভাতেই আমরা অবগত হলাম কিশোরগঞ্জের শোলমারা-তে ট্রেনিং সেন্টারসহ গড়ে উঠবে বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান। কর্মমুখী শিক্ষা ও কর্মসংস্থানের একটি উল্লেখ্যযোগ্য স্পটে পরিণত করা হবে ঐ অঞ্চল।
আজকের এই মতবিনিময় সভায় আমার মতো নগণ্য একজন মানুষকেও থাকার সুযোগ দিয়েছিলেন মহামান্য রাষ্ট্রপতি, সেজন্য রইলো অশেষ কৃতজ্ঞতা।
মহামান্যের বক্তব্যে আমরা জানতে পারলাম জয়দেবপুর থেকে একটি রেলপথ হবে টোক+পাকুন্দিয়ার চরফরাদী ইউনিয়ন পর্যন্ত । মহামান্যের প্রত্যাশা এই রেলপথটি (যা মহান জাতীয় সংসদে উল্থাপন করেছিলেন সাবেক মাননীয় সংসদ সদস্য এড. জনাব সোহরাব উদ্দিন সাহেব) পাকুন্দিয়া কটিয়াদি কিশোরগঞ্জ হয়ে করিমগঞ্জের বালিখলা পর্যন্ত সম্প্রসারিত হউক। আল্লাহ তায়াল উনার সকল স্বপ্ন কবুল করুন, নেক হায়াত দান করুন।
শেখ তৌফিকুল ইসলাম তারিফ

আহব্বায়ক

অষ্টগ্রাম উপজেলা ছাত্রলীগ

কিশোরগঞ্জ, ময়মনসিংহ ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here