রাস্তা প্রসস্থ করনের নামে মানুষেকে ক্ষতিগ্রস্তকরা, বিশইজতেমা মাঠ উন্নয়নের নামে আত্মসাৎ

0
30

আলিফ আরিফা হক, গাজীপুর থেকেঃ গাজীপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে কটুক্তি করার দায়ে দল থেকে আজীবনের জন্য বহিষ্কৃত গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি করপোরেশনের বহিষ্কৃত মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট ভাবে দুর্নীতির ২৪টি অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার(২৬ এপ্রিল) দুপুরে ভারপ্রাপ্ত মেয়র আসাদুর রহমান কিরন বলেন, সাময়িক বহিষ্কৃত মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে মন্ত্রণালয় থেকে দুর্নীতির অভিযোগে গঠিত তদন্ত কমিটির কাজ চলমান রয়েছে।

 যতদুর জানা গেছে তদন্ত কমিটি সুনির্দিষ্ট ২৪টি অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করছে। অভিযোগের মধ্যে জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বাষিকী অনুষ্ঠানের ২ কোটি ১১ লাখ টাকা, সিটি করপোরেশনের নামে কোনাবাড়ী প্রিমিয়ার ব্যাংক শাখায় সিটি করপোরেশনের নামে তার একক একাউন্ট করে পাঁচটি কোম্পানি থেকে নেওয়া হোল্ডিং ট্যাক্সের ২কোটি ৬০ লাখ টাকা এবং করোনাকালীন সময়ে কোন প্রকার নিয়ম নীতি না মেনে ৫ কোটি ৭০ লাখ টাকার মালামাল ক্রয়ের নামে আত্মসাৎ করারও অভিযোগ রয়েছে।

 সিটি করপোরেশনের কাউলতিয়া এলাকায় প্রাক্কলিত মূল্য ৪০ কোটি টাকা এর মধ্যে ৩৮ কোটি টাকার কাজ না করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে বিল পরিশোধ করারও সুনিদ্রিষ্ট অভিযোগ ছাড়াও রাস্তা প্রসস্থ করনের নামে মানুষেকে ক্ষতিগ্রস্তকরা, বিশ^ ইজতেমা মাঠ উন্নয়নের নামে নানান ধরনের বিল ভাওচার দেখিয়ে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎসহ সুনিদ্রিষ্ট ২৪টি অভিযোগ তদন্ত কমিটির হাতে রয়েছে। এদিকে গত শনিবার বিকেলে কানাইয়া তাঁর নিজ গ্রাামের লোকজন ও অনুগত কর্মীদের সাথে বরখাস্তকৃত মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের বিপরীত মৌখিক বক্তব্য দেন।

 এই বক্তব্যের ভিডিও ক্লিপে দেখা যায়, তিনি দাবি করছেন ষড়যন্ত্রমূলকভাবে সাময়িকভাবে তাঁর মেয়র পদ স্থগিত করা হয়েছে। গত ৬ মাসেও তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে একটা লাউ, বাগুনও পায় নাই। পরে ওই দিনই জেলা শহরের গাজীপুর ক্লাব লিমিটেডে জাহাঙ্গীর অনুগত কতিপয় গণমাধ্যম কর্মীদের গাজীপুর প্রেক্লাবের নামে আয়োজিত এক ইফতার পার্টিতে যোগ দেন। ওই পার্টিতে গাজীপুরের জেলা প্রশাসক আনিসুর রহমান, পুলিশ সুপার, উপ পুলিশ কমিশনারসহ মহানগর আওয়ামীলীগের কয়েক নেতা যোগ দেন এবং বক্তব্য রাখেন।

বিষয়টি সামাজিক যোগা মাধ্যমে প্রচার হলে আওয়ামীলীগ এবং গণমাধ্যমে কর্মরত নেতাকর্মীদের মাঝে উত্তেজনার পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝর উঠে। উল্লেখ্য -বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, মুক্তিযুদ্ধ এবং বাংলাদেশ সম্পর্কে কটুক্তি করায় ও মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ শহিদের সংখ্যা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করে জাহাঙ্গীর আলমের কথোপকথনের ধারণ করা একটি ভিডিও গত আগস্টের শেষ সপ্তাহে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়।

 এ প্রেক্ষিতে আওয়ামীলীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির এক বৈঠক শেষে জাহাঙ্গীর আলমকে দল থেকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হয় এবং নিয়ম অনুযায়ী সিটিকরপোরেশনের প্যানেল মেয়র না করা সহ নানান অভিযোগে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে তাঁকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here