সিলেটে নামধারী সাংবাদিক এর বিরুদ্ধে শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টা ও হুমকির অভিযোগ , অভিযুক্ত পলাতক

0
70

এফআইআর টিভি অনলাইন ডেক্সঃ সিলেটে সংবাদিক নামধারী খায়রুল আলম সুমন নামে ৪০ বছর বয়সীর বিরুদ্ধে প্রলোভন দেখিয়ে ৩ বছরের এক মেয়েশিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। ওই শিশুকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার (ওসিসি) -এ ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে বিষয়টি কাউকে না বলার জন্য হুমকি দেয়া হয় শিশুটিকে। সিলেট মহানগর পুলিশের শাহপরান থানাধীন সৈয়দপুরের এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত খায়রুল আলম সুমন ওসমানীনগর গ্রামের মানিক মিয়ার মিয়ার ছেলে।

এ ঘটনায় শিশুটির পিতা বাদী হয়ে শাহপরান থানায় ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে গত বুধবার মামলা দায়ের করেন। মামলার পর থেকেই অভিযুক্ত সুমন পলাতক রয়েছেন। সুমন নিজেকে সিলেটের বড় সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে একের পর এক কান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে হুমকি প্রদান করে। যার ফলে ভয়ে কেউ তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার সাহস পায়নি। সাধারণ মানুষ তাকে সাংবাদিক হিসাবে চিনেন। কিন্তু সকল ঘটনা হুমকি দিয়ে আড়াল করলেও এই শিশু ধর্ষণের বিষয়টি গোপন করতে পারেনি। এই সুমনের সাথে রয়েছে একটি বিশাল ধোকাবাজ প্রতারক চক্র। এরাও তার চেয়ে কম নয়। তারা সিলেটের সাংবাদিকদের মান-সম্মান ধোলোর সাথে মিশিয়ে দিয়েছে। এই চক্রের যন্ত্রণায় অতিষ্ট সিলেটের সাংবাদিক মহল।

জানা যায়, গত ৯ মার্চ দুপুরে সাড়ে ৩ বছরের শিশুটি খায়রুল আলম সুমনের বাসায় গিয়ে তার মেয়ের সাথে খেলাধুলা করছিল। এ সময় সুমন শিশুটিকে মজা দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ডেকে নিয়ে একাধিকবার যৌনপীড়ন করে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। শিশুটি তখন কান্নাকাটি করলে সুমন তখন এ বিষয়টি কাউকে না বলার জন্য হুমকি দেয়। পরবর্তীতে শিশুটির মা শিশুটিকে গোসল করাতে নিয়ে গেলে বিষয়টি ধরা পড়ে। তখন শিশুটি তার মাকে সার্বিক বিষয় খুলে বলে। পরে শিশুটিকে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার (ওসিসি)- এ ভর্তি করেন।

মামলার বাদী শিশুটির পিতা জানান, আমার সাড়ে ৩ বছরের মেয়ে শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা করে সুমন। পুলিশ এখন পর্যন্ত সুমনকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। ইতোমধ্যে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সত্যতা পেয়েছে।

সিলেট শাহপরান থানার ওসি সৈয়দ আনিসুর রহমান বলেন, সাড়ে ৩ বছরের শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টার দায়ে খায়রুল আলম সুমন নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন শিশুটির পিতা। ইতোমধ্যে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। শিশুটি ওসিসি’তে চিকিৎসা নিয়েছে। পুলিশ আসামীকে ধরার জন্য অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here