সৈয়দপুরে চালককে গুরুতর জখম করে মোটরসাইকেল ছিনতাই

0
47
সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধিঃ নীলফামারীর সৈয়দপুরের পল্লীতে এক সড়কে চালককে ছুরিকাঘাতে গুরুতর জখম করে একটি মোটরসাইকেল ছিনতাই হয়েছে।

গত শনিবার দিনগত গভীর রাতে ঢেলাপীর-তারাগঞ্জ  উপজেলা পাকা সড়কের  সৈয়দপুর উপজেলার খাতামধুপুর ইউনিয়নের মৌয়াবাড়ী বিলের সন্নিকটে ওই মোটরসাইকেল ছিনতাইয়ের ঘটনাটি ঘটে।  দুর্বৃত্তদের মোটরসাইকেল চালক ও দুই আরোহীকে বেদম মারপিট করাসহ ধাঁরালো ছুরিকাঘাতে গুরুতর জখম করেছে। বর্তমানে মোটরসাইকেলের মালিক আবু বক্কর গুরুতর আহত অবস্থায় রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

জানা গেছে,  সৈয়দপুর উপজেলার খাতামধুপুর ইউনিয়নের খালিশা দর্জিপাড়ার ব্যবসায়ী আলী হোসেনের ছেলে আবু বক্কর সিদ্দিক (২৭)। সে লেখাপড়ার পাশাপাশি স্থানীয় হামুরহাটে বাবার  ব্যবসা  দেখাশুনা করেন। ঘটনার দিন গত শনিবার  তিনি  (আবু বক্কর সিদ্দিক) ব্যক্তিগত কাজে তাঁর সঙ্গীয় জনৈক নয়ন (২৫) ও নিশাদকে (২২) সঙ্গে  নিয়ে রংপুরের তারাগঞ্জহাট যান। এরপর  রাত আনুমানিক ১২টার দিকে সেখান থেকে মোটরসাইকেলে করে খালিশা দর্জিপাড়ার বাড়িতে ফিরছিলেন। এ সময় তারা তারাগঞ্জ – ঢেলাপীর উপজেলা সড়কের মৌয়াবাড়ী বিলের সন্নিকটে পৌঁছলে মুখোশপড়া ১২/১৩ জনের একদল দুর্বৃত্ত সড়কে রশি দিয়ে বেরিকেট দিয়ে তাদের মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে। এরপর দুর্বৃত্তরা মোটরসাইকেল চালক ও দুই আরোহীকে বেদম মারপিট ও ধাঁরালো অস্ত্র দিয়ে গুরুতর জখম করে মোটরসাইকেলটি ছিনিয়ে পালিয়ে যায়। পরে আশপাশের লোকজন আহতদের আর্তচিৎকারে  দ্রুত ছুঁটে এসে  দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে গুরুতর জখমপ্রাপ্ত আবু বক্করসহ অপর দুইজনকে প্রথমে তারাগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। পরে গুরুতর জখমপ্রাপ্ত আবু বক্করকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। বর্তমানে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাঁর বাম হাতে আটটি সেলাই দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।  অপর আহত নয়ন ও নিশাদকে তারাগঞ্জ স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়। খবর পেয়ে গতকাল রোববার সৈয়দপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

সৈয়দপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ইন্দ্র মোহন রায়, দুর্বৃত্ত কর্তৃক মোটরসাইকেল ছিনতাইয়ের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান,মোটরসাইকেল ছিনতাইয়ের ঘটনাটি গুরুত্বসহকারে দেখা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here