হবিগঞ্জের বানিয়াচং বড়বাজারের চাউল ব্যবসায়ী সফর আলীর অপকর্মে ক্রেতা নারীগন অতিষ্ট ! 

0
72

আকিকুর রহমান রুমন, বিশেষ প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের বানিয়াচং বড়বাজারের চাউল ব্যাবসায়ী সফর আলীর অপকর্মে দোকানে আসা ক্রেতা নারীগন অতিষ্ট হয়ে উঠার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

দোকানে আসা ক্রেতা নারীগনদের কাছ থেকে জানাযায়, বড়বাজারের পশ্চিমে অবস্থিত সফর আলীর চাউলের দোকানে চাউলক্রয় করতে আসেন।
এসময় দোকান মালিক সফর আলী তার গোডাউনে ভালো চাউল রয়েছে বলে তাদেরকে দেখানোর জন্য সেখানে নিয়ে যায়।
এবং সেখানে গিয়ে নারীদের গায়ে হাত দেয়াসহ বিভিন্ন অশ্লীল ভাষায় আলাপ আলোচনার সহিত নানান অপকর্ম করার অভিযোগ করেন এসব ভুক্ত ভোগী ক্রেতাগন।
এই নারী লিপ্সু সফর আলী(৩৬)দীর্ঘদিন ধরে বড়বাজারে চাউলের ব্যাবসার আড়ালে নারীদের সাথে এই অনৈতিক কর্মকান্ড চালিয়ে আসার অভিযোগও রয়েছে চাউল ব্যবসায়ী সফর আলীর উপর।
এই নারী লোভী লম্পট স্থানীয় বড় বাজারে মায়ের দোয়া ট্রেডার্স নামে একটি দোকান ঘর ভাড়া নিয়ে ব্যাবসা পরিচালনা করে আসছে।
আর এই ব্যাবসা প্রতিষ্টানের স্বত্বাধিকারীর দায়িত্বও নিজে পালন করে আসছে।
এই ভন্ড ব্যাবসায়ী সফর আলী হলো বানিয়াচং উপজেলা সদরের ২নং উত্তর পশ্চিম ইউনিয়নের আদমখানী মহল্লার মোঃদৌস মোহাম্মদ মিয়ার পুত্র।

তার সম্পর্কে খোঁজ নিয়ে জানা যায়,বাজারে চাউল কিনতে আসা অনেক অসহায় নারী সফর আলীর দোকানে যায়। আর এই সুযোগে চাউল দেখানোর নাম করে দোকানের পাছনে তার চাউলের গোডাউনে নিয়ে যায় এবং সেইসব মহিলাদের গায়ে হাত দেয়াসহ মহিলাদের সাথে অশ্লীল ভাষায় আলাপ আলোচনা সহিত অসভ্য আচরণ করতো।
এসব মহিলাদের সাথে খারাপ আচরণের কারনে বেশ কয়েকবার জরিমানাও গুনতে হয়েছে এই চাউল ব্যাবসায়ী সফর আলীকে।
এছাড়াও বিভিন্ন এলাকা থেকে বাজারে সদাই করতে আসা নারীদেরকে প্রায়ই উত্যক্ত করতো করতো বলেও জানাযায়।
তার দোকানের সামন দিয়া কোন কোন নারী হেটে যাওয়ার সময় তারা ইভটিজিংয়ের শিকারও হতেন বলে তার সাথের ব্যাবসায়ী বলেন।
এমনকি অন্যান্য চাউল ব্যাবসায়ীসহ আশপাশের অনেক ব্যাবসায়ীগন আরও বলেন,এই সফর আলী হলো একজন নারী লোভী প্রকৃতির মানুষ।তার স্ত্রী সন্তান থাকা সত্বেও সে পরনারীকে লালসার শিকার বানিয়ে ভোগ করে আসতো।এনিয়ে একাধিকবার প্রতিবেশী ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে তাকে হুশিয়ারী করে দেয়া হয়েছিলো।অথচ দিন-দিন সফরের এমন নারীদের প্রতি কু-দৃষ্টির মাত্রা আরো বেড়েই চলছিল।
বানিয়াচং সদরের ইনাথখানী মহল্লার ও চানপাড়া মহল্লার জনৈক নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দুই ভুক্তভোগী নারী জানান, তারা সফর আলীর দোকানে চাউল ক্রয় করতে গিয়েছিলেন,এসময় তাদেরকে চাউল দেখানোর কথা বলে তার পাছনে চাউল রাখা গোডাউনে নিয়ে যায়।এবং তাদেরকে গায়ে হাত দিয়ে খারাপী করার চেষ্টা চালিয়ে বিভিন্ন অশ্লীল কথা বার্তার সহিত তাদেরকে ভোগ করারও চেষ্টা চালিয়েছিলো এই লম্পট ভন্ড ব্যাবসায়ী সফর আলী।এসময় তারা তাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে নিজের ইজ্জত রক্ষা করে দ্রুত ওই দোকান ত্যাগ করে চলে আসেন।

এসব বিষয়ে সফর আলীর বক্তব্য নিতে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে সে জানায়,তাকে তার প্রতিপক্ষ ব্যাবসায়ীগন ফাঁসাতে চাইছে বলেই তার উপর এমন অভিযোগ তুলা হচ্ছে।
প্রকৃত পক্ষে আমি এসব অপকর্ম ও জগন্যতম কর্মকান্ডের সাথে জড়িত না ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here